প্রচ্ছদ

করোনায় উত্তেজনার মধ্যেই চীনা সাংবাদিকদের ওপর মার্কিন বিধিনিষেধ

  |  ১৪:০৬, মে ০৯, ২০২০
www.adarshabarta.com

আদর্শবার্তা ডেস্ক:

চীনা সাংবাদিকদের ভিসা নির্দেশনা কঠোর করে নতুন নিয়ম ইস্যু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। চীনে মার্কিন সাংবাদিকদের ওপর যে আচরণ করা হয়েছে, এটা তারই জবাব বলে দাবি করা হয়েছে।

এর মধ্য দিয়ে বৈশ্বিক মহামারী মোকাবেলায় চীনের পদক্ষেপ নিয়ে দুদেশের উত্তেজনা নতুন রূপ পেয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে সাংবাদিকদের ঘিরে বেশ কিছু প্রতিশোধমূলক পদক্ষেপ নিয়েছে চীন ও যুক্তরাষ্ট্র। গত মার্চে আমেরিকান তিনটি পত্রিকার সাংবাদিকদের বহিষ্কার করে চীন।

তার মাসখানেক পর যুক্তরাষ্ট্র জানায়, মার্কিন ভূখণ্ডে কার্যক্রম চালানো চীনের রাষ্ট্র-পরিচালিত পাঁচটি গণমাধ্যমের কার্যালয়কে বিদেশি দূতাবাস হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

রাষ্ট্র মালিকানাধীন স্থাপনা নিয়ে মার্কিন সিদ্ধান্তের পর ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের তিন সাংবাদিককে বহিষ্কার করে চীন। তাদের দুজন যুক্তরাষ্ট্রে ও একজন অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক।

এর আগে চীনকে নিয়ে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল বর্ণবাদী নিবন্ধ ছাপে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

শুক্রবার জারি করা যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নীতিমালায় হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের উদ্ধৃতি দেয়া হয়। যাতে বলা হয়, স্বাধীন সাংবাদিকতার ওপর দমনাভিযান চালাচ্ছে চীন।

সোমবার থেকে নতুন নীতিমালা কার্যকর করা হবে। এতে চীনা সাংবাদিকদের ভিসার মেয়াদ ৯০ দিনে সীমাবদ্ধ করে দেয়া হয়েছে। যদিও মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগও রাখা হয়েছে।

এ ধরনের ভিসার ক্ষেত্রে সাধারণত কোনো সময় বেঁধে দেয়া থাকে না। কর্মীরা যদি ভিন্ন কোনো প্রতিষ্ঠান বা গণমাধ্যমে যোগ না দেয়, তবে ভিসার মেয়াদও বাড়াতে হয় না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডিএইচএসের এক কর্মকর্তা বলেন, নতুন নীতিমালায় তারা চীনা সাংবাদিকদের ভিসা আবেদন বারবার পরখ করে দেখতে পারবেন। তাছাড়া মার্কিন ভূখণ্ডে চীনা সাংবাদিকদের সংখ্যাও কমিয়ে আনা হতে পারে।

ওই কর্মকর্তা বলেন, ব্যাপক জাতীয় নিরাপত্তা সুরক্ষা নিশ্চিত করতে যাচ্ছে এই নীতিমালা।

তবে হংকং ও ম্যাকাও থেকে আসা সাংবাদিকরা এই নীতিমালার আওতায় পড়বে না।