প্রচ্ছদ

কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল’র তৃতীয় গ্রন্থ ‘দেখা থেকে লেখা’র মোড়ক উন্মোচন

  |  ০৭:২০, জানুয়ারি ০২, ২০২১
www.adarshabarta.com

 

সিলেট অফিস:

সিলেট লেখক ফোরাম এবং মুক্তিযোদ্ধার প্রজন্ম সভাপতি সাংবাদিক কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল’র তৃতীয় একক গ্রন্থ ‘দেখা থেকে লেখা’ এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে। শনিবার বিশ্বনাথে লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের দুজন কাউন্সিলরসহ এ মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্টজনরা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসের সদ্য সাবেক স্পিকার কাউন্সিলর মো. আয়াছ মিয়া। বক্তব্যে তিনি বলেন, সুদুর বিলেত থেকে যার আকাশছোঁয়া স্বপ্ন ও বর্ণিল এবং ব্যতিক্রম সব কার্যক্রম দেখে মনে আনন্দ পাই, উৎফুল্ল হই, উদ্বেলিত হই তিনি হচ্ছেন আমাদের সিলেটের অহংকার কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল। লন্ডনে আমরা তাঁর প্রথম সঙ্গীতের অ্যালবাম ‘আমরা ঘরর তাইন’ এর মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলাম ২০১৪ তে। অনুষ্ঠানে যোগদান করেছিলেন লন্ডনে অবস্থানরতো জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত খ্যাতিমান লেখক কবি সাংবাদিক সাহিত্যিক জনপ্রতিনিধি সমাজসেবী কমিউনিটি লিডার ও গুণীজনরা। অনুষ্ঠানে কবি নাজমুলের লেখা সঙ্গীতগুলো আমরা শুনেছিলাম প্রাণভরে। আলোচনাসভায় বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেছিলেন কবি নাজমুল সাহিত্য জগতে অনেকদুর এগিয়ে যাবেন। সত্যিই এগিয়ে গেছেন অনেকদুর। পাড়ি দিয়েছেন অনেক পথ। রচনা করেছেন হাজারেরও অধিক সঙ্গীত। প্রকাশিত হয়েছে দুটি গ্রন্থ ও বারোটি সঙ্গীতের অ্যালবাম। সম্পাদনা করেছেন অনেকগুলি স্মারক ম্যাগাজিন পত্র পত্রিকা ও সাহিত্য সংকলণ। যা বাংলা সাহিত্য সম্ভারে এক অমুল্য সংযোজন।

তিনি আরও বলেন, কবি নাজমুল শুধু লেখালেখিতেই নয়। সমাজসেবায়ও রেখে আসছেন অসামান্য অবদান। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রয়েছে তাঁর নিপূণ হাতের ছোঁয়া। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাঠ ভরাট, শ্রেণীকক্ষ ও গেইট নির্মাণ, ইউনিফর্ম ও টিপিন বক্স প্রদান, কমপিউটারও ও সেলাই মেশিন প্রদান থেকে শুরু করে প্রদান করেছেন শিক্ষা সামগ্রীও। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও অসহায়দের ফ্রি চিকিৎসার ব্যবস্থা ও ঔষধপত্র প্রদান করেছেন এবং করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি সাংবাদিকতার জগতে তিনি একজন সৎ দক্ষ ও যোগ্যতাসম্পন্ন সাংবাদিক হিসেবে অর্জন করেছেন ঈর্ষণীয় খ্যাতি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ডা: কবি শাহনুর আলী মামুন, কবি গীতিকার ও লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসের কাউন্সিলর শাহ সোহেল আমীন, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সমাজসেবী আব্দুস সালাম চৌধুরী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডা: কবি শাহনুর আলী মামুন বলেন, কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল এর কবিতার পাশাপাশি শেকড়সন্ধানী প্রবন্ধগুলো প্রশংসিত হয়েছে বিজ্ঞজনদের কাছে। সমসাময়িক বিষয়ের উপর তাঁর লেখা অনেক অনেক কলাম ছাঁপা হয়েছে জাতীয় স্থানীয় এবং দেশ বিদেশের প্রথমসারির পত্র পত্রিকায়। মজার মজার পূঁথি, কবিতা, ছড়া লেখার পাশাপাশি গান লিখেছেন হাজারেরও অধিক। এ পর্যন্ত তাঁর লেখা গানের অ্যালবামই বেরিয়েছে এক ডজন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কবি গীতিকার কাউন্সিলর শাহ সোহেল আমীন বলেন, আজকে আমরা দেখা থেকে লেখা গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন করলাম। কবি নাজমুল ইসলাম মকবুল অত্যান্ত গুণী একজন ব্যক্তি। তাঁর অন্যান্য বইগুলোও আমি দেখেছি। তিনি মা ও মাটির লেখক। অত্যন্ত সহজ ও সাবলীল ভাষায় লেখেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, কবির দুবাই সফর ও মদীনা মুনওয়্যারায় ঈদ উদযাপনের স্বচক্ষে দেখা অভিজ্ঞতার বিষয়গুলো লেখনির মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলেছেন চমৎকারভাবে। বইটির অন্যত্র ভেজাল খাদ্যে সয়লাভ দেশ, লাফ দিয়ে পার হওয়া যাবে বাসিয়া নদী এসব লেখাগুলি উনার প্রতিবাদী লেখা। স্বচক্ষে এসব দেখে তিনি প্রতিবাদ করেছেন লেখনির মাধ্যমে সাহস ও বুদ্ধিমত্তার সাথে। আমরা কবির এ বইটির সাফল্য কামনা করি এবং বইটি পড়ার অনুরোধ জানাই সকলকে। পাশাপাশি আমরা অপেক্ষায় রইলাম কবির আগামী বইয়ের জন্য।